প্রচ্ছদ

গোলাপগঞ্জে চেক ডিজঅনার করতে গিয়ে ব্যবসায়ী নির্যাতনের শিকার

13 September 2019, 12:28

গোলাপগঞ্জের ডাক

সিলেটঃ গোলাপগঞ্জে ইসলামী ব্যাংকে চেক ডিজঅনার করতে গিয়ে সাকির আহমদ নামে এক ব্যবসায়ী নির্যাতনের শিকার হয়েছেন চেকের মালিকের হাতে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় এ ঘটনা ঘটে। নির্যাতনের শিকার ওই ব্যবসায়ী উপজেলার হেতিমগঞ্জ বাজার খাঁন এন্টার প্রাইজের গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবসায়ী।

নির্যাতনের শিকার ওই ব্যবসায়ী বলেন-গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবসায়ী গোলাপগঞ্জ চৌমুহনীর কল্পনা এন্টার প্রাইজের মালিক সৈয়দ জিল্লুর রহমানের সাথে আমার ব্যবসায়ীক ১০ লাখ টাকা পাওনা ছিল ২০১৫ সালের। আমার পাওনা টাকা দেওয়ার জন্য দীর্ঘদিন থেকে বলে আসছিলাম।

তিনি আমার পাওনা টাকা না দিয়ে উল্টো ভয় ভীতি দেখিয়ে আসছিলেন। ১১ সেপ্টেম্বর কল্পনা এন্টার প্রাইজের দেয়া ১০ লক্ষ টাকার চেক ডিজঅনার করতে গেলে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ পরেরদিন আসতে বলেন। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় আবার ইসলামী ব্যাংক গোলাপগঞ্জ শাখার ৬০৫৫৬৪৭ নাম্বারের চেকটি ডিজঅনার করতে গেলে ব্যাংক ম্যানেজার ওই একাউন্টের মালিক কল্পনা এন্টার প্রাইজের সৈয়দ জিল্লুর রহমানকে বিষয়টি জানান।

কিছুক্ষণ পর সৈয়দ জিল্লুর রহমান ওই ব্যাংকে উপস্থিত হন এবং ব্যবসায়ী সাকির আহমদকে চড় থাপ্পড় মেরে ব্যাংকের নিচে নিয়ে যান। এসময় ওই ব্যাংকের নিচতলা নূর ম্যানশনের ব্যবসায়ীরা জড়ো হন এবং বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য একটি রেষ্টুরেন্টে বসলে কল্পনা এন্টার প্রাইজের জিল্লুর রহমান পুলিশকে খবর দিলে এএসআই বাপ্পি শাকিরকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। প্রায় ৩ঘন্টা পর থানা পুলিশ শাকির আহমদের এলাকার মেম্বার ও স্বজনদের জিম্মায় ছেড়ে দেয়।

ব্যাপারে জানতে সৈয়দ জিল্লুুর রহমানের মুঠোফোনে একাধিকবার কল দিলেও তার ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।
নূর ম্যানশনের ব্যবসায়ী গোলাপগঞ্জ পৌর মেয়র আমিনুল ইসলাম রাবেলের ছোট ভাই জাহাঙ্গির আহমদ বলেন-আমি ওই বিষয়টি নিষ্পত্তি করার চেষ্টা করছিলাম। এসময় পুলিশ ওই ছেলেটিকে থানায় নিয়ে যায়।
এ ব্যাপারে ইসলামী ব্যাংক গোলাপগঞ্জ শাখার ম্যানেজার মামুনুল ইসলামের সাথে আলাপ করা হলে তিনি বলেন- চেকের পর্যাপ্ত টাকা না থাকায় ওই লোকটি চেকটি ডিজঅনার করতে বললে আমরা চেকের মালিক সৈয়দ জিল্লুর রহমানকে বিষয়টি জানাই। পরে কি হয়েছে তা বলতে পারবো না। চেকের মালিক বলছিলেন তার ওই চেকটি হারিয়েছে। আমরা চেকের মালিককে জিডির কপি আনতে বলেছি। তবে এখনও কিছু পাইনি।
এ বিষয়ে গোলাপগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত ওসি মিজানুর রহমানের সাথে আলাপ করা হলে তিনি বলেন- হেতিমগঞ্জের ব্যবসায়ী সাকির খান ও সৈয়দ জিল্লুর রহমানের মধ্যে টাকার চেক নিয়ে উত্তেজনা বিরাজ করছিল। এসময় সাকিরকে পুলিশ থানায় নিয়ে আসে।

  •  
  •  

সর্বশেষ খবর