প্রচ্ছদ

আসল ওসির কাছে চাঁদা চেয়ে নকল ওসির ফোন

০৬ নভেম্বর ২০১৯, ১০:১৩

গোলাপগঞ্জের ডাক

ডেস্ক : মির্জাপুর থানার ওসি (তদন্ত) মো. মোশারফ হোসেন বলেছেন, আমার নাম ব্যবহার করে বিভিন্ন লোকজনকে ফোন করে চাঁদার টাকা দাবি করছে একটি চক্র। তিনি বলেন, চক্রটি আমাকেও ফোন দিয়ে বলেছে আমি মির্জাপুর থানার ওসি (তদন্ত) মো. মোশারফ হোসেন বলছি। তোমার নামে অভিযোগ রয়েছে। মামলা ও অভিযোগ থেকে বাঁচতে হলে এখনই টাকা পাঠাও। চক্রটি যে নম্বর দিয়ে ফোন করে চাঁদা দাবি করেছে তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা করা হচ্ছে।
মঙ্গলবার মির্জাপুর থানা পুলিশ সূত্র জানায়, প্রতারণার শিকার হয়েছেন মির্জাপুর থানার বর্তমান ওসি (তদন্ত) মো. মোশারফ হোসেন, বাংলাদেশ জাতীয় পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান ও গোড়াই ক্যাডেট কলেজ এলাকার বাসিন্দা খন্দকার বিপ্লব মাহমুদ উজ্জল, লতিফপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. জাকির হোসেন এবং তরফপুর এলাকার বাসিন্দা মো. নাছির উদ্দিন।

ওসি (তদন্ত) মো. মোশারফ হোসেন, খন্দকার বিপ্লব মাহমুদ উজ্জল এবং মো. নাছির উদ্দিন অভিযোগ করেন, সোমবার বিকেলের পর থেকে প্রতারক চক্র ০১৭৫৫-২৯৬৭৩৯ নম্বর মোবাইলে তাদের আলাদা আলাদা ভাবে ফোন করে বলেন, আমি মির্জাপুর থানার ওসি (তদন্ত) মো. মোশারফ হোসেন বলছি। তোমাদের নামে গুরুতর অভিযোগ রয়েছে। অভিযোগ থেকে বাঁচতে হলে এসপি ও ডিআইজিকে ম্যানেজ করতে হবে। তাদেরকে ১০ মিনিটের মধ্যে টাকা পাঠাতে হবে। আমি পারসোনাল রকেট মোবাইল নম্বর দিলাম। এখনই এক লাখ করে টাকা পাঠাও। এই ঘটনা অন্য কাউকে জানালে অবস্থা ভালো হবে না।

এ ব্যাপারে প্রতারক চক্রের দেয়া ০১৭৫৫-২৯৬৭৩৯ মোবাইল নম্বরে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলে ফোন বন্ধ থাকায় তাদের সঙ্গে কথাবলা সম্ভব হয়নি। এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রতারক চক্রটি দীর্ঘ দিন ধরে মির্জাপুরে প্রতারণার ফাঁদ পেতে এভাবে চাঁদা দাবি করে আসছে। এর আগে মির্জাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা, সংসদ সদস্য, সংসদ সদস্যের একান্ত সহকারী, কয়েকজন শিক্ষক এবং কয়েকজন ইউপি চেয়ারম্যানকে ফোন করে একই ভাবে চাঁদা দাবি করেছে বলে অভিযোগ রয়েছে। সূত্র : ইত্তেফাক

  •  
  •  

গরু ছাগলের হাট

সর্বশেষ খবর