প্রচ্ছদ

গোলাপগঞ্জে কাউন্সিলররা চান ভোট, নেতারা চান সমঝোতা

13 November 2019, 20:37

গোলাপগঞ্জের ডাক

ডাক ডেস্কঃ দীর্ঘ ১৬ বছর পরে অনুষ্ঠিত হচ্ছে সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন। দীর্ঘসময় পর তৃণমূলের নেতাকর্মীদের জন্য কাঙ্ক্ষিত এই সম্মেলনে নেতৃত্ব নির্ধারণে বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হয়েছে। সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক পদের নেতৃত্ব নির্ধারণে কেন্দ্র ও জেলার নেতারা সমঝোতার প্রস্তাব দিয়েছেন। অন্যদিকে জেলা ও কেন্দ্রের নেতাদের দাবি বয়কট করে ভোট আয়োজনের জন্য শ্লোগান দিচ্ছেন তৃণমূলের নেতাকর্মী। এ নিয়ে সম্মেলনস্থলে বিশৃঙ্খল পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে।

বুধবার (১৩ নভেম্বর) সন্ধ্যা সাতটায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত উপজেলার কাউন্সিলররা ভোটের মাধ্যমে নেতৃত্ব নির্ধারণের দাবিতে সম্মেলনস্থলে বিক্ষোভ করছিলেন।

বুধবার (১৩ নভেম্বর) গোলাপগঞ্জ উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের প্রথম পর্ব অনুষ্ঠিত হয়।

সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশন বিকেল থেকে উপজেলা অডিটোরিয়ামে হওয়ার কথা ছিল। উপজেলার সকল কাউন্সিলরা এ অধিবেশনে যোগ দেন। এঅধিবেশনে সমঝোতার মাধ্যমে উপজেলা আওয়ামী লীগের নতুন নেতৃত্ব নির্ধারণের প্রস্তাব দেন জেলা ও কেন্দ্রের নেতারা। কিন্তু তাদের প্রস্তাবে বাদ সাধেন তৃনমূলের নেতাকর্মী এবং কাউন্সিলররা।

তারা ভোটের মাধ্যমে নেতৃত্ব নির্ধারণের দাবিতে সম্মেলনস্থলে বিক্ষোভ করে যাচ্ছেন। এদিকে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ সমঝোতার চেষ্টায় রয়েছেন বলে জানিয়েছেন সম্মেলনস্থলে উপস্থিত থাকা একাধিক কাউন্সিলর।

সেখানে কেন্দ্রীয় এবং জেলা নেতৃবৃন্দের মাঝে উপস্থিত রয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা আহমদ হোসেন, এডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, কেন্দ্রীয় সদস্য ও  সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপিত অ্যাডভোকেট লুৎফুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী প্রমুখ।

  •  
  •  

সর্বশেষ খবর