প্রচ্ছদ

‘বন্ধুর’ মোটরসাইকেল চুরি করেছিল গোলাপগঞ্জের মুন্না ও হানিফ

23 November 2019, 18:05

গোলাপগঞ্জের ডাক

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ প্রথমবার চুরি! তাও বন্ধুর মোটরসাইকেল চুরি করে যাত্রা! কিন্তু শুরুতেই ধরা খেলেন দুই চোর বন্ধু। থানা হাজতের চৌদ্দ শিকল ছুঁয়ে তাদের ঠিকানা এখন কারাগারে।

চোর চক্রের সদস্যর হলেন, গোলাপগঞ্জ উপজেলার ফুলসাইন্দ গ্রামের সরফ উদ্দিনের ছেলে রাহাত তালুকদার মুন্না (২১) ও একই গ্রামের সেলিম উদ্দিনের ছেলে আদনান হানিফ (২২)। তাদের দেওয়া তথ্যমতে, চোরাইকৃত মোটর সাইকেলটিও উদ্ধার করেছে পুলিশ।

এ ঘটনায় আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দিতে চুরির ঘটনা স্বীকারও করেছেন এ দুই আসামি।

পুলিশ জানায়, ১৯নভেম্বর সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে নগরীর সোবহানীঘাটস্থ আগ্রা কমিউনিটি সেন্টারের সামনে থেকে একটি ডিসকভার মোটর সাইকেল চুরি হয়। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়।

পরবর্তীতে অভিযানে নামে কোতোয়ালি পুলিশের একটি দল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুক্রবার ভোররাতে গোলাপগঞ্জ থানার ফুলসাইন্দ ফকিটিলা এলাকায় অভিযান চালিয়ে চুরি হওয়া মোটর সাইকেলটি উদ্ধার করে।

এসময় পুলিশের হাতে ধরা পড়ে চোরচক্রের দুই সদস্য। পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতার হওয়া চোরদ্বয় মোটরসাইকেলটি চুরি দায় স্বীকার করে।

শুক্রবার তাদের মেট্টোপলিটন আদালতে হাজির করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা। আদালতে তারা উভয়ে ১৬৪ ধারায় চুরির ঘটনা স্বীকার করে।

আদালতে তাদের জবানবন্দির বরাত দিয়ে কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সেলিম মিঞা জানান, চুরির ঘটনায় আটক দু’জনসহ চার জন জড়িত রয়েছেন বলে তারা আদালতকে জানিয়েছে। আদালতে তারা এও জানায়, আগে থেকে মোটরসাইকেলটি চুরির প্রস্তুাতি স্বরূপ নকল চাবি বানিয়ে রাখে। এরপর ঘটনাস্থল কমিউনিটি সেন্টারে আরেক বন্ধুকে দিয়ে মোটরসাইকেলের মালিককে ব্যস্ত রেখে তারা ডিসকভার মোটর সাইকেলটি চুরি করে।

তিনি বলেন, যদিও গ্রেফতার হওয়া দু’জন এটাই তাদের  প্রথম চুরি বলে পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে। জবানবন্দি গ্রহণ শেষে আদালত তাদেরকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এছাড়া চুরির ঘটনায় জড়িত অপর আসামিদের ধরতে পুলিশ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে, বলেন ওসি।

  •  
  •  

সর্বশেষ খবর