প্রচ্ছদ

সিলেট শাহী ঈদগায় ছবির শুটিং, প্রতিবাদের ঝড়

30 November 2019, 19:03

গোলাপগঞ্জের ডাক

ডাক ডেস্কঃ  যেখানে বছরে দুইবার ঈদের জামাত হয়। যেখানে মহান আল্লাহর কুদরতি পায়ে সেজদায় মুসলিম উম্মাহর ললাট অবনত হয়। সেটা ইসলামের আভিধানিক আর পারিভাষিক উভয় অর্থেই মসজিদের সংজ্ঞায় পড়ে।

সেখানে সারাবছর খোলামেলা তরুণ-তরুণীদের চলে আড্ডা আর সেলফিবাজি। যা কমিটির উদ্যোগে রোধ করা সম্ভব হয় নি। সংবাদ মাধ্যমে এ নিয়ে ইতোপূর্বে প্রতেবেদন করায় সাইনবোর্ড সাঁটানো হয়েছিল।

কমিটি দায়সারা বক্তব্য তখন দিয়েছিল যে, ডায়াবেটিকস রোগিদের হাটাচলার জন্য উন্মোক্ত রাখা হয়েছে। এনিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিন্দা আর প্রতিবাদের ঝড় উঠেছিল। আধ্যাত্মিক রাজধানী সিলেট নগরীতের যুক্ত হলো কলঙ্কের ২য় অধ্যায়।

বাংলা ফিল্ম ইত্তেফাক এর শুটিং। ছাতা-রুল, ক্যামেরা অ্যাকশন। এসব কীভাবে হলো জানেন না কেউ।
সিসিক মেয়র জানেন না, ঈদগাহ মোতাওয়াল্লিও জানেন না। তবে কে দিল এমন নোংরামির অনুমতি। তা এখন সিলেট নগরীর সচেতন নাগরিকদের প্রশ্ন।

গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যার পর জামিয়া মাদানিয়া কাজিরবাজার মাদরাসা থেকে ছাত্র মজলিস প্রতিবাদ মিছিল বের হয়। জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম ও ইমাম সমিতির নেতারা নিন্দা জানিয়েছেন।

ঐতিহ্যের স্মারক শাহী ঈদগাহ। অবিভক্ত বাংলাদেশ কিংবা ব্রিটিশ আমলে ভারতীয় উপমহাদেশ; ইতিহাসের দিকে নজর দিলে শাহী ঈদগাহের ঐতিহাসিক গুরুত্ব চোখের সামনে ভেসে ওঠে অকপটে। মুসলিম উম্মাহ’র সর্ববৃহৎ দু’টি ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আযহায় এখানে জমায়েত হন লাখো মুসল্লি। শুধু ঈদের জামাতই নয়; ইতিহাসের বাঁকে আরোও নানান ঘটনার সাথে জড়িয়ে আসে ঐতিহাসিক এই স্থাপনাটি। সিলেটের মানুষের পবিত্র আবেগ জড়িয়ে গেছে ঈদগাহের সাথে। এখানে কোনোরূপ নেতিবাচক ঘটনা ঘটলেই নগরবাসীর হৃদয়ে আঘাত লাগে। বৃহস্পতিবার শাহী ঈদগাহতেই প্রকাশ্যে হয়ে গেলো সিনেমার শুটিং। কারোর কোনোরূপ অনুমতি ব্যতিত এখানে শুটিং করা হয়েছে।

  •  
  •  

সর্বশেষ খবর