প্রচ্ছদ

অটোরিকশা বিক্রি করে চুরির গল্প ফাঁদলেন চুক্তিভিত্তিক চালক

01 December 2019, 17:01

গোলাপগঞ্জের ডাক

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি: বিশ্বনাথে আফরোজ আলী (৩৫) নামের এক চালকের বিক্রি করা সিএনজি চালিত অটোরিকশাটি ১৫দিন পর সিলেট থেকে উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। এসময় পাবেল মিয়া (২৩) নামে অন্য এক চালককে গ্রেপ্তার করে জেলহাজতে পাঠিয়েছে থানা পুলিশ। গ্রেপ্তার হওয়া পাবেল দক্ষিণ সুরমা উপজেলার লামা হাজরাই গ্রামের মৃত ইকবাল মিয়ার ছেলে।

শনিবার (৩০ নভেম্বর) দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। আগেরদিন শুক্রবার রাত ১১টারদিকে সিলেটের খোজার খলা এলাকা থেকে ‘সিলেট-থ-১১-৩১৮১’ নাম্বার ওই অটোরিকশাটি উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ঘটনায় শুক্রবার রাতেই অটোরিকশা মালিক বিশ্বনাথের পেছিখুরমা গ্রামের আব্দুল মালিকের স্ত্রী জোছনা বেগম বাদি হয়ে বিশ্বনাথ থানায় মামলা দায়ের করেছেন, (মামলা নং ২২)। মামলায় তার চুক্তিভিত্তিক চালক একই গ্রামের মরম আলীর ছেলে ফিরোজ আলীকে (৩৫) প্রধান আসামি করে গ্রেপ্তার হওয়া পাবেল ও দক্ষিণ সুরমার চৌধুরীগাঁও দুলা মিয়ার ছেলে ছত্তার মিয়াকে (৩৫) সহ অজ্ঞাতনামা আরও ২/৩জনে আসামি করা হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেন থানা পুলিশের এসআই রুসল আহমদ।

তিনি জানান, জোছনা বেগমের ‘সিলেট-থ-১১-৩১৮১’ নাম্বার সিএনজি চালিত ওই অটোরিকশা দীর্ঘদিন থেকে চুক্তিভিত্তিক চালান তার পাশের বাড়ির ফিরোজ আলী। সম্প্রতি গাড়ির কাগজপত্র নবায়ন করার কথা বলে জোছনা বেগমের নিকট থেকে অটোরিকশার মূল কাগজপত্র নিয়ে যান ফিরোজ। ওই কাগজপত্রের সঙ্গে সাদা কাগজে জোছনা বেগমের স্বাক্ষর নিয়ে প্রতারণা করে ফিরোজ অটোরিকশাটি অন্যত্র বিক্রি করে নিজে লাপাত্তা হয়ে যান।

সর্বশেষ গত ২৩ নভেম্বর জোছনা বেগম তার সন্ধান পেলে ফিরোজ তাকে জানায় স্থানীয় পনা উল্লাহ বাজার থেকে অটোরিকশাটি চুরি হয়ে গেছে। ওইদিন জোছনা বেগম বিশ্বনাথ থানায় একটি জিডি করেন। জিডির প্রেক্ষিতে থানা পুলিশ তাকে (জোছনা বেগম) সঙ্গে নিয়ে সিলেটের খোজারখলা এলাকা থেকে গাড়িটি উদ্ধার করেন এবং অন্য এক চালককে গ্রেপ্তার করে।

  •  
  •  

সর্বশেষ খবর